রোজ শনিবার, ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:৪২

শিরোনামঃ
দীর্ঘদিন বন্ধের পরে আজ খুলেছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, পরিদর্শনে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক বরিশালে ৬ ফার্মেসিকে ২৭ হাজার টাকা জরিমানা বিশেষ কায়দায় ফেনসিডিল বহন করেও শেষ রক্ষা হলো না তাদের, বিএমপি’র অভিযানে আটক ৪। দুইজন নারী ও ফেন্সিডিলসহ বরিশালে মাদক ব্যবসায়ী বুলেট গ্রেফতার কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার একজন বিএমপি’র অভিযানে ৪৫ পিস ইয়াবা সহ গ্রেফতার ০২ বরিশালে লকডাউন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ১ লক্ষ ৩৭ হাজার টাকা জরিমানা ও ৬ জনকে আটক। মীরগঞ্জ খেয়াঘাটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় যাত্রীকে মারধর- অভিযুক্ত গ্রেফতার নগদের ৮ লক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের রহস্য উদঘাটন, ডিএসও নুরুল্লাহ গ্রেফতার। বিএমপি’র সৌজন্যে অসহায় ও দুঃস্থদের মাঝে ঈদ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠিত
ছাত্রীদের যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আটক

ছাত্রীদের যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আটক

অনলাইন নিউজ ডেস্কঃ নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় চার ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে এক মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে আটক করেছে র‍্যাব-১১। উপজেলার ভূঁইগড় এলাকা থেকে শনিবার দুপুরে তাকে আটক করে হয়েছে। আটক শিক্ষকের নাম মোস্তাফিজুর রহমান (৩৪)। সে নেত্রকোনা জেলার সদর উপজেলার কাওয়াল কোনা এলাকার বাসিন্দা।
র‍্যাব সূত্রে জানা যায়, মোস্তাফিজুর রহমান উপজেলার ভূঁইগড় এলাকায় অবস্থিত দারুল হুদা আল ইসলামিয়া মহিলা মাদ্রাসা ও এতিমখানার অধ্যক্ষ। ছয় বছর আগে সে ঐ মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করে।
স্থানীয় লোকজন ও র‍্যাব সূত্রে জানা যায়, ভূঁইগড় এলাকায় একটি চারতলা ভবনের নিচতলায় অবস্থিত দারুল হুদা আল ইসলামিয়া মহিলা মাদ্রাসা ও এতিমখানা। ওই মাদ্রাসায় ৯৫ জন ছাত্রী লেখাপড়া করছে। এর মধ্যে ৩০ থেকে ৩৫ জন ছাত্রী মাদ্রাসায় আবাসিকভাবে লেখাপড়া করছে। র‍্যাব-১১ –এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলেপ উদ্দিন প্রথম জানান, তাঁদের কাছে অভিযোগ আসে অধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর মাদ্রাসার চার ছাত্রীকে গত তিন মাস ধরে ধর্ষণ করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে র‍্যাব তদন্তে নামে। প্রাথমিকভাবে তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। পরে শনিবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে মোস্তাফিজুরকে মাদ্রাসা থেকে আটক করা হয়। তিনি আরও বলেন, ধর্ষণের শিকার অনেক ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। ধর্ষণের সময় চিৎকার করলে তাদের মারধর করতো মোস্তাফিজ।
র‍্যাব-১১ কোম্পানি কমান্ডার মেজর তালুকদার নাজমুস সাকিব সাংবাদিকদের বলেন, ‘ঐ অধ্যক্ষের মুঠোফোনে আমরা কিছু রেকর্ড পেয়েছি। সেগুলো আমরা খতিয়ে দেখছি। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।’