রোজ বৃহস্পতিবার, ১লা অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:৪১

শিরোনামঃ
মেহেন্দিগঞ্জ মসজিদে ছবি সম্ভলিত ব্যানার টানিয়ে বিতর্কিত কর্ম কান্ডের জন্য ক্ষমা চাইলেন কৃষক লীগের সম্পাদক পলাশ ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাশ ৪ অক্টোবর থেকে শুরু সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছাড়লেন ওয়াহিদা খানম ফের বাড়লো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি নিজের বলার মত একটা গল্প ফাউন্ডেশনের হাজারতম দিন উদযাপন বরিশাল জেলা প্রশাসনের আয়োজনে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর সুস্থতা কামনা করে দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠিত কারো অপকর্মের দায় আওয়ামী লীগ ও সংসদ সদস্য নেবে না- সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগ সভাপতি বরিশালে অনুষ্ঠিত হলো কম্যুনিটি স্কুল শিক্ষার্থীদের পুষ্টি ও শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বরগুনার রিফাত হত্যা মামলায় মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁসির আদেশ ৪ জন খালাস তানোরের গির্জায় কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে ফাদার গ্রেপ্তার
মোবাইলে কথা বলার উপর বর্ধিত কর কর্তন শুরু

মোবাইলে কথা বলার উপর বর্ধিত কর কর্তন শুরু

নিউজ ডেস্ক।।মোবাইলে কথা বলার বর্ধিত কর কর্তন শুরু।২০২০-২১ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটে মোবাইল সিম বা রিম কার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে সেবার বিপরীতে সম্পূরক শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছে। ঘোষণার পর বৃহস্পতিবার (১১ জুন) দিবাগত রাত ১২টা থেকেই এই ঘোষণা কার্যকর হয়েছে। এখন কথা বললে বাড়তি খরচ দিতে হচ্ছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে সংসদ অধিবেশনে ২০২০-২১ অর্থবছরের জন্য পাঁচ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এবারের বাজেটের শিরোনাম অর্থনৈতিক উত্তরণ ও ভবিষ্যৎ পথ পরিক্রমা।

বাজেটে মোবাইল সিম বা রিম কার্ড ব্যবহারে সরাসরি গ্রাহকের কাছ থেকে পাঁচ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বেশি নেয়ার কথা বলা হয়। যা ১২ জুন থেকে কার্যকর হয়েছে।

ফলে মোবাইল ফোনে কথা বলা, এসএমএস পাঠানো এবং ডেটা ব্যবহারের খরচও বেড়ে গেছে। গত অর্থবছরের বাজেটে মোবাইল সিম বা রিম কার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে সেবার বিপরীতে সম্পূরক শুল্ক পাঁচ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হয়েছিল।

এদিকে মোবাইল ফোনের সিম কার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে প্রদত্ত সেবার ওপর সম্পূরক শুল্ক বাড়িয়ে প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণার পরই মধ্যরাত থেকে এসএমএস, কথা বলা ও ইন্টারনেট ব্যবহারে গ্রাহকদের বাড়তি অর্থ গুনতে হচ্ছে। পাঁচ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) গ্রাহকের কাছ থেকে এই বাড়তি অর্থ নেয়া শুরু করেছে।

নতুন করহারে মোবাইল সেবার ওপর মূল্য সংযোজন কর (মূসক বা ভ্যাট) ১৫ শতাংশ, সম্পূরক শুল্ক ১৫ শতাংশ ও সারচার্জ এক শতাংশ। ফলে মোট করভার দাঁড়িয়েছে ৩৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ।

তাই প্রতি ১০০ টাকা রিচার্জে সরকারের কাছে কর হিসেবে যাবে ২৫ টাকার কিছু কম, এতদিন যা ২২ টাকার মতো ছিল। বিশ্লেষকরা এবং কোম্পানিগুলো বলে আসছিল, মোবাইল সেবায় কর বাড়ানোর ফলে সাধারণ মানুষ বেশি চাপে পড়বে।

দেশে মার্চ শেষে মোবাইল গ্রাহক দাঁড়িয়েছে ১৬ কোটি ৫৩ লাখের বেশি।

মোবাইল ফোন অপারেটররা বলছে, আগে ১০০ টাকা খরচ করলে সরকারকে ২১ টাকা ৫৭ পয়সা দিতে হতো। পাঁচ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বাড়ায় এখন তা হবে ২৪ টাকা ৯৫ পয়সা। এই বাড়তি খরচ বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকেই কার্যকর হয়েছে।

তবে ইন্টারনেটের ক্ষেত্রে ভ্যাট পাঁচ শতাংশ হওয়ায় ডেটা ব্যবহারে কিছুটা কম খরচ হবে বলে জানায় অপারেটররা।

এদিকে বাজেটে টেলিযোগাযোগ সেবায় সম্পূরক শুল্ক পাঁচ শতাংশ বাড়িয়ে দেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, মহামারি করোনায় আয় রোজগারহীন গ্রাহকের ওপর অতিরিক্ত করের বোঝা ‘জুলুম’। সরকারের কাছে বর্ধিত আরোপিত কর বাতিল করার দাবি জানিয়েছেন তিনি।