রোজ বৃহস্পতিবার, ১লা অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:১১

শিরোনামঃ
মেহেন্দিগঞ্জ মসজিদে ছবি সম্ভলিত ব্যানার টানিয়ে বিতর্কিত কর্ম কান্ডের জন্য ক্ষমা চাইলেন কৃষক লীগের সম্পাদক পলাশ ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাশ ৪ অক্টোবর থেকে শুরু সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছাড়লেন ওয়াহিদা খানম ফের বাড়লো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি নিজের বলার মত একটা গল্প ফাউন্ডেশনের হাজারতম দিন উদযাপন বরিশাল জেলা প্রশাসনের আয়োজনে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর সুস্থতা কামনা করে দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠিত কারো অপকর্মের দায় আওয়ামী লীগ ও সংসদ সদস্য নেবে না- সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগ সভাপতি বরিশালে অনুষ্ঠিত হলো কম্যুনিটি স্কুল শিক্ষার্থীদের পুষ্টি ও শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বরগুনার রিফাত হত্যা মামলায় মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁসির আদেশ ৪ জন খালাস তানোরের গির্জায় কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে ফাদার গ্রেপ্তার
আগামী ১২ আগস্ট বাজারে চলে আসবে বিশ্বের প্রথম করোনার ভ্যাকসিন।

আগামী ১২ আগস্ট বাজারে চলে আসবে বিশ্বের প্রথম করোনার ভ্যাকসিন।

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনাভাইরাসে ইতোমধ্যে সাত লক্ষাধিক মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় দুই কোটি। করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কারে দুনিয়ার তাবৎ বিজ্ঞানীরা দিনরাত পরিশ্রম করে চলেছেন। কয়েকডজন প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কারে অনেক দূর এগিয়েছে।
তবে সবার আগেই করোনার সফল ভ্যাকসিন বাজারে নিয়ে আসছে রাশিয়া। আগামী ১২ আগস্ট রাশিয়ার গামালেই ইনস্টিটিউট অব এপিডেমিওলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজি এ ভ্যাকসিন বাজারজাত শুরু করবে।

শনিবার (০৮ আগস্ট) রুশ সংবাদমাধ্যম দ্য মস্কো টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, আগামী ১২ আগস্ট বাজারে চলে আসবে বিশ্বের প্রথম করোনার ভ্যাকসিন।

ইতোমধ্যেই বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে করোনা ভ্যাকসিনের হিউম্যান ট্রায়াল পর্ব শেষ করে ফেলেছে রাশিয়া।
মস্কো টাইমস ছাড়াও ইকোনোমিক টাইমস, এক্সপ্রেস ফার্মা, টাইমস অব ইন্ডিয়া ও বিজনেস টুডেসহ একাধিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এ খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ১,৬০০ জন স্বেচ্ছাসেবকের ওপর এই টিকা প্রয়োগ করা হয়েছে। ট্রায়ালে দেখা গেছে, এই টিকা করোনার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়তে সক্ষম হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবীদের শরীরেও এই টিকার প্রয়োগে কোনও রকম পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া বা সমস্যা দেখা দেয়নি।

রাশিয়ার শিল্পমন্ত্রী ডেনিস মন্তুরভ জানান, সেপ্টেম্বর থেকেই এই টিকার উৎপাদনের গতি আরও বাড়ানো হবে।

গত সপ্তাহে রুশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরশকো জানান, সামনের মাসেই বাজারে টিকা ছাড়ার আদেশ ইতোমধ্যে জারি হয়ে গেছে। দ্রত গতিতে চলছে টিকা উৎপাদনের কাজ। এ বছরের মধ্যেই সাড়ে ৪ কোটিরও বেশি পরিমাণ প্রতিষেধকের ডোজ তৈরি করতে পারবে রাশিয়া। তবে প্রতিষেধক উৎপাদনের পাশাপাশি চলবে এটির তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালও।