রোজ রবিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৪:৩২

শিরোনামঃ
বরিশালে ঘুরতে এসে বাসের চাপায় প্রাণ গেল তিন জনের দীর্ঘদিন বন্ধের পরে আজ খুলেছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, পরিদর্শনে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক বরিশালে ৬ ফার্মেসিকে ২৭ হাজার টাকা জরিমানা বিশেষ কায়দায় ফেনসিডিল বহন করেও শেষ রক্ষা হলো না তাদের, বিএমপি’র অভিযানে আটক ৪। দুইজন নারী ও ফেন্সিডিলসহ বরিশালে মাদক ব্যবসায়ী বুলেট গ্রেফতার কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার একজন বিএমপি’র অভিযানে ৪৫ পিস ইয়াবা সহ গ্রেফতার ০২ বরিশালে লকডাউন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ১ লক্ষ ৩৭ হাজার টাকা জরিমানা ও ৬ জনকে আটক। মীরগঞ্জ খেয়াঘাটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় যাত্রীকে মারধর- অভিযুক্ত গ্রেফতার নগদের ৮ লক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের রহস্য উদঘাটন, ডিএসও নুরুল্লাহ গ্রেফতার।
মিরনের মৃত্যুতে বাবা অজ্ঞান, ছেলেকে দেখতে এখন দেশের পথে

মিরনের মৃত্যুতে বাবা অজ্ঞান, ছেলেকে দেখতে এখন দেশের পথে

অনলাইন ডেস্কঃ কুমিল্লা নগরীতে সহপাঠীদের ছুরিকাঘাতে মোমতাহিন ইসলাম মিরন নামে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। সে কুমিল্লা নগরীর মডার্ণ হাইস্কুলের ৮ম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

গতকাল রোববার শবে বরাতের রাতে এ ঘটনা ঘটে। সে জেলার সদর উপজেলার ঝাগুরঝুলি বিষ্ণুপুর এলাকার সিঙ্গাপুর প্রবাসী আবুল কালাম আজাদের ছেলে।

মিরনের পরিবার নগরীর পূর্ব বাগিচাগাঁও এলাকায় একটি বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করেন। সে ৪ ভাইয়ের মধ্যে দ্বিতীয়। এদিকে মিরনের প্রবাসী বাবা দেশে আসার পরই দাফন সম্পন্ন হবে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি কুমিল্লা মডার্ণ হাইস্কুলের একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বসা নিয়ে মিরনের সহপাঠী আবিরের সঙ্গে ৭ম শ্রেণির পল্টুর বিরোধ সৃষ্টি হয়। রাতে শবে বরাতের নামাজ পড়তে মিরন ও তার বন্ধু আবির নগরীর ঠাকুরপাড়া এলাকার মদিনা মসজিদে যায়। সেখানে নামাজ থেকে বের হওয়ার পর মিরন ও আবিরের সঙ্গে পল্টু ও তার বন্ধু আমিনের বাকবিতণ্ডা হয়।

এ সময় উভয় গ্রুপের হাতাহাতির এক পর্যায়ে আবিরকে বাঁচাতে মিরন এগিয়ে গেলে আমিন ও পল্টু তাকে মারধরসহ ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা মিরনকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর রাত সাড়ে ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

সোমবার দুপুরে মিরনের মরদেহের ময়নাতদন্তের পর বিকেলে নগরীর পূর্ব বাগিচাগাঁও এলাকার বাসায় নিয়ে যাওয়ার পর এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। পরিবারের সদস্য ছাড়াও সহপাঠীদের অনেককেই কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা গেছে। মিরনের এমন মৃত্যু মেনে নিতে পারছে না পরিবার ও সহপাঠীরা।

এ ঘটনায় কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের ওসি মোহাম্মদ আবু ছালাম মিয়া পিপিএম জানান, নিহতের শরীরে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে।