রোজ বুধবার, ১৮ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, রাত ২:৫৫


শিরোনামঃ
বিঘাই ও পায়রা নদীর ভাঙ্গন হতে শেখ হাসিনা সেনানিবাস এলাকা রক্ষা প্রকল্পটি পরিদর্শন করলেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কর্ণেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম এমপি। চট্টগ্রাম মহানগর জাতীয় পার্টির উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বরিশালে ৩ কেজি গাঁজা সহ মাদক ব্যবসায়ী দম্পতি আটক ডেন্টালে জাতীয় মেধায় প্রথম হয়েছেন নাসরিন সুলতানা ইভা সহকারী জজ হিসেবে সুপারিশ প্রাপ্ত হলেন লাকুটিয়ার সন্তান সৌরভ রায়। মেহেন্দিগঞ্জে গলায় খাবার আটকে দুই বছরের এক শিশুর মৃত্যু বরিশালে বিএমপি’র অভিযানে গাঁজাসহ দুই গাঁজা ব্যবসায়ী গ্রেফতার বরিশালে ৫ কেজি গাঁজাসহ আটক দুই। বাবা’র মরণেই দুঃসহ জীবনের শুরু…! রিজিক নিয়ে বৃথা টেনশন করে লাভ নেই!
জল দিচ্ছি না তাই ইলিশ পাচ্ছি না: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

জল দিচ্ছি না তাই ইলিশ পাচ্ছি না: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

অনলাইন ডেস্কঃ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘বাংলাদেশকে আমরা তিস্তার জল দিতে পারিনি তাই ওরা আমাদের ইলিশ দেওয়া বন্ধ করেছে।’ আজ মঙ্গলবার বিধানসভার অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে বিধায়ক রহিমা বিবির প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে মমতা এ কথা বলেন।
ওই বিধায়কের প্রশ্নের জবাবে মমতা বলেন,‘বাঙালি মাছে-ভাতে থাকতে ভালোবাসে । কিন্তু বাংলাদেশকে আমরা তিস্তার জল দিতে পারিনি। তাই ওরা আমাদের ইলিশ দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। বাংলাদেশ আমাদের বন্ধু দেশ। কিন্তু জল নেই, তাই কোথা থেকে জল দেব ?’
মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ’আমরা ইলিশ মাছ উৎপাদনের লক্ষ্যে রিসার্চ সেন্টার করেছি। আমাদের এই বাংলায় এখন ইলিশ মাছের অভাব নেই। আগামী দিনে আমাদের এই ইলিশ নিয়ে গবেষণা শেষে আমরা প্রচুর ইলিশ উৎপাদনে সমর্থ হব। তখন গোটা দেশে ইলিশ সরবরাহ করতে পারব। দু-এক বছরের মধ্যে আর আমাদের বাইর থেকে ইলিশ আনতে হবে না।’
২০১২ সালের জুলাই থেকে বাংলাদেশ সরকার ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। এরপর থেকে পশ্চিমবঙ্গের ইলিশ ব্যবসায়ীরা এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে আসছে। তবে বাংলাদেশ সরকারের আরোপিত নিষেধাজ্ঞায় এখনো কোনো পরিবর্তন আসেনি।
এদিকে তিস্তার পানির দাবিতে অনড় রয়েছে বাংলাদেশ। কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সাবেক ইউপিএ সরকারের আমল থেকে এই পানি বণ্টনের জন্য বাংলাদেশ দাবি জানিয়ে আসছে। তবে ভারত সরকার এখনো তাতে সবুজ সংকেত দেয়নি। মমতা তিস্তার পানি না থাকার কারণ দেখিয়ে এই পানি বণ্টন চুক্তির বিরোধিতা করছেন।

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন-০১৮২২৮১৫৭৪৮