রোজ রবিবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, সকাল ১০:৫৮


ঢেড়ঁসের যত গুনাগুন ও তার চাষাবাদ পদ্ধতি

ঢেড়ঁসের যত গুনাগুন ও তার চাষাবাদ পদ্ধতি

ঢেঁড়স চাষঃ
ঢেঁড়স অনেকেরই একটি প্রিয় সব্জী। আমাদের দেশে এটি ব্যপকভাবে চাষ করা হয়। ঢেঁড়স মূলত শীতকালীন সব্জী হলেও বর্তমানে এটি সারা বছরই চাষ করা যায়। ঢেঁড়স আমরা সাধারণত ভাজি, ভর্তা ও তরকারির উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করে থাকি
ঢেঁড়সের খাদ্য গুণাগুণঃ
ঢেঁড়সে প্রচুর পরিমাণে খাদ্যগুনাগুন রয়েছে। এতে রয়েছে ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন এ ও অন্যান্য ধরণের অনেক উপাদান। ঢেঁড়সে প্রতি ১০০ গ্রাম ভক্ষণযোগ্য অংশে আমিষ (১.৮ গ্রাম) ভিটামিন-সি (১৮ মিলিগ্রাম) খনিজ পদার্থ বিশেষ করে ক্যালসিয়াম (৯০ মিলিগ্রাম), লোহা (১ মিলিগ্রাম) ও আয়োডিন রয়েছে।


হাতের নাগালেই ঢেঁড়স চাষঃ
আপনি ইচ্ছা করলে আপনার বাড়ির চিলেকোঠা বা ছাদে অথবা ঘরের বারান্দায় অথবা বাড়ির আঙ্গিনায় বা উঠোনে এই ঢেঁড়সের চাষ করতে পারেন। জেনে নেয়া যাক কিভাবে আপনি এই ঢেঁড়স চাষ করবেন।
ঢেঁড়স চাষের জন্য আপনাকে দোআঁশ অথবা বেলে দোআঁশ মাটি নির্বাচন করতে হবে। এবং চারা লাগানোর আগে মাটিকে অবশ্যই ঝুরঝুরা করে নিতে হবে। এবং খেয়াল রাখতে হবে মাটি যেন উর্বর হয়।
বাড়িতে ঢেড়ঁস চাষঃ
বাড়িতে ঢেড়ঁস চাষ করার ক্ষেত্রে আপনাকে উপযুক্ত পাত্র নির্বাচন করতে হবে। ঢেঁড়স চাষের জন্য ছোট বা মাঝারি সাইজের টব বা পাত্র নিতে পারেন। এছাড়াও আপনি আপনার বাড়ির উঠোনে অল্প জায়গা নিয়ে এই ঢেঁড়সের চাষ করতে পারেন।
পরিচর্যাঃ
ঢেঁড়স গাছে নিয়মিত যত্ন নিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে গাছের গোড়ায় যেন আগাছা না জন্মায়। আগাছা জন্মালে তা উঠিয়ে ফেলতে হবে। এবং দেখতে হবে পানি শুকিয়ে গেলে টবের মাটিতে যেন ফেটে না যায়।

ঢেড়ঁস সংগ্রহ করার সঠিক সময়ঃ
ঢেঁড়স মূলত কাচা অবস্থায় সংগ্রহ করতে হবে। যদি বেশী বড় হয় তবে ঢেড়ঁস এর কোন স্বাদ থাকে না এবং এটা আঁশ হয়ে যায়। ঢেঁড়স এর বীজ বপনের দু´মাস পরেই ফল পাওয়া যায়। ঘন ঘন ঢেঁড়স তুললে গাছে বেশি পরিমানে ঢেড়ঁস আসে।
সুতরাং সব্জি হিসেবে আমরা আমাদের খাদ্য তালিকায় ঢেড়ঁস কে রাখব এবং চেষ্টা করব বাড়িতে চাষ করেই আমরা এর চাহিদা পূরন করব।

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন-০১৮২২৮১৫৭৪৮

Md Saiful Islam