রোজ বুধবার, ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১:৫৪

শিরোনামঃ
নির্বাচনে বিঘ্ন সৃষ্টিকারী, অনাকাঙ্ক্ষিত ব্যক্তিদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে-পুলিশ কমিশনার বিএমপি। মানুষকে সেবা প্রদান করে যে ভালোবাসা পাওয়া যায়, তার চাইতে বড় আত্মতৃপ্তি আর কিছুই নেই__পুলিশ কমিশনার বিএমপি। বরিশালে ৪৬ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ০২ জন বাকেরগঞ্জে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে, কারাগারে পাঠানোর দায়ে, ম্যাজিস্ট্রেটের বিচারিক ক্ষমতা প্রত্যাহারের নির্দেশ ১২০ পিস ইয়াবা সহ গ্রেফতার ০২ নাগরিক নিরাপত্তা ও সামাজিক সমস্যা নিরসনে বিএমপি সদা জাগ্রত- বিএমপি কমিশনার। বরিশালে ০৩ কেজি গাঁজা সহ গ্রেফতার ০১ পটুয়াখালীতে প্রেমিক যুগলের একই দড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা বিএমপি’র অভিযানে ২০৫ পিস ইয়াবা ও ৫৮ গ্রাম গাঁজা সহ গ্রেফতার ০২ পটুয়াখালীতে মোটরসাইকেল-মাহিন্দ্রার সংঘর্ষে স্বর্না (১০) নামের এক শিশুর মৃত্যু
বরিশাল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন ও খাদ্য বিতরন

বরিশাল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন ও খাদ্য বিতরন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার মধ্যদিয়ে বহমান সন্ধ্যা নদীর ভয়াবহ ভাঙ্গনে ইতোমধ্যে বিলীন হয়ে গেছে নদী তীরবর্তী শত শত ঘরবাড়ি, আবাদি জমি ও গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। এতে নিঃস্ব হয়ে পথে বসেছে শত শত পরিবার। নদী ভাঙ্গনে প্রতিনিয়তই বিনিদ্র রাত কাটাচ্ছেন ভাঙ্গন কবলিত পরিবারের সদস্যরা। গতকাল পূর্ব ভুতের দিয়া গ্রামের কয়েকটি বসতঘর সন্ধ্যা নদীতে বিলীন হয়ে যায়। পাশাপাশি বেশ কিছু স্থাপনা, দোকান ঘরসহ ফলন্ত বৃক্ষ। এছাড়া ভাঙ্গন ঝুঁকিতে রয়েছে একটি মসজিদ।গতকাল ১৮ জুলাই বিকাল ৬ টায় ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক বরিশাল মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার বাবুগঞ্জ ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরিশাল, নুসরাত জাহান, বরিশাল ডিআরআরও মোঃ আবদুল লতিফ, কেদারপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান, নুরে আলম ব্যাপারি, সিনিয়র সহসভাপতি জেলা আওয়ামীলীগ বরিশাল, মোহাম্মদ হোসেন চৌধুরী, পিআইও বাবুগঞ্জ, আরিফুর রহমানসহ এলাকার বাসিন্দারা উপস্থিত ছিলেন। এসময় ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাবার সামগ্রী বিতরণ করেন এবং তাদের সব ধরনের সাহায্য সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন। পাশাপাশি নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে সরকারের পক্ষ থেকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করার ও আশ্বাস দেন। স্থানীয়দের দাবি অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ করে অচিরেই ভাঙ্গন কবলিত এলকায় প্রতিরোধে কাজ শুরু না করলে মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে বাবুগঞ্জ উপজেলার নদী ও তীরবর্তী অসংখ্য গ্রাম।