রোজ মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রাত ৯:১০

শিরোনামঃ
কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার একজন বিএমপি’র অভিযানে ৪৫ পিস ইয়াবা সহ গ্রেফতার ০২ বরিশালে লকডাউন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ১ লক্ষ ৩৭ হাজার টাকা জরিমানা ও ৬ জনকে আটক। মীরগঞ্জ খেয়াঘাটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় যাত্রীকে মারধর- অভিযুক্ত গ্রেফতার নগদের ৮ লক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের রহস্য উদঘাটন, ডিএসও নুরুল্লাহ গ্রেফতার। বিএমপি’র সৌজন্যে অসহায় ও দুঃস্থদের মাঝে ঈদ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠিত মেহেন্দিগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গৃহবধূকে পিটিয়ে জখম। মতলবে দি একমি ল্যাবরেটরিজ লিঃ এর বিক্রয় প্রতিনিধির আত্মহত্যা নগরীতে করোনা প্রতিরোধ বুথের উদ্বোধন করলেন পুলিশ কমিশনার বিএমপি। বরিশালে জেলা প্রশাসন ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয়ে ৩ শতাধিক শিশুকে খাদ্য বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক
সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে ডেঙ্গুর চিকিৎসা

সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে ডেঙ্গুর চিকিৎসা

ছবি: ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা। (ছবি সংগৃহীত)

অনলাইন নিউজ ডেস্ক: সরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের সব ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা বিনামূল্যে করার ঘোষণা দিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। শুধু তাই নয়, ডেঙ্গু রোগীদের জন্য প্রয়োজনীয় ওষুধ, খাবার স্যালাইন ও আইভি (ইন্ট্রাভেনাস) স্যালাইনও বিনামূল্যে সরবরাহ করা হবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম বলেন, ‘এ মুহূর্তে ডেঙ্গু রোগীদের সুচিকিৎসাই অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে। সরকারি হাসপাতালে সব ধরনের পরীক্ষার জন্য ইউজার ফি পরিশোধ করতে হয়। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে ডেঙ্গু রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে ওষুধপত্র ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা ফ্রি করা হবে। এ জন্য হাসপাতালগুলোকে অতিরিক্ত অর্থ বরাদ্দ দেয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘এখন বছরের শুরুতে সরকারি হাসপাতালে অর্থের সংকট নেই। তারা ডেঙ্গু রোগীদের জন্য অতিরিক্ত টাকা খরচ করলে তা অতিরিক্ত বরাদ্দ দিয়ে সমন্বয় করা হবে।’

এদিকে বেসরকারি ছোটবড় হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোতে ডেঙ্গু এনএসওয়ান, আইজিজি, আইজিএম ও সিবিসির পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফি নির্ধারণ করে দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। ডেঙ্গু পরীক্ষার জন্য-এনএসওয়ান সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা, আইজিজি ও আইজিএম (দুটি একত্রে কিংবা একটি) সর্বোচ্চ ৫০০ ও সিবিসি সর্বোচ্চ ৪০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এ মূল্য তালিকা অনুযায়ী সব বেসরকারি হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হবে। এ ছাড়া বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে একটি ‘ওয়ান স্টপ সেন্টার’ চালু করতে হবে। পাশাপাশি সব হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের জন্য শয্যাসংখ্যা বাড়াতে হবে।