রোজ বৃহস্পতিবার, ২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:৫৯

ঢাকা পৌঁছেছে ব্যারিস্টার মওদুদের মরদেহ

ঢাকা পৌঁছেছে ব্যারিস্টার মওদুদের মরদেহ

নিউজ ডেস্ক:: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের মরদেহ ঢাকায় পৌঁছেছে। বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) সন্ধ্যা ৬টার দিকে তার মরদেহ বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছে।

মরদেহের সঙ্গে সিঙ্গাপুর থেকে এসেছেন মওদুদ আহমদের স্ত্রী হাসনা জসীম উদ্দীন মওদুদ।
বিমানবন্দরে মওদুদ আহমদের মরদেহ গ্রহণ করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন- দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, বরকত উল্লাহ বুলু, ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, জয়নুল আবদিন ফারুক, যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, আব্দুল লতিফ জনি, তাবিথ আউয়াল, ইশরাক হোসেন, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খানসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বিমানবন্দর থেকে মরদেহ সরাসরি গুলশানে মওদুদ আহমদের বাসায় নিয়ে সেখান থেকে এভার কেয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাতে রাখা হবে।

আগামী শুক্রবার (১৯ মার্চ) সকাল ৯টা থেকে ৯টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে মরদেহ রাখা হবে। সেখানে সর্বস্তরের মানুষ প্রথিতযশা এ রাজনীতিককে শেষ শ্রদ্ধা জানাবেন।

সকাল ১০টায় সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে প্রথম জানাজা হবে। সেখান থেকে নেওয়া হবে নয়াপল্টন দলীয় কার্যালয়ের সামনে। দলের পক্ষ থেকে তার কফিনে শ্রদ্ধা জানাবেন দলের মহাসচিব, সিনিয়র নেতা ও সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা। সেখানে বেলা ১১টায় জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে নোয়াখালীতে। দুপুর আড়াইটায় নোয়াখালীর কবিরহাট ডিগ্রি কলেজ মাঠে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। বিকেল ৪টায় বসুরহাট কোম্পানীগঞ্জ সরকারি মুজিব মহাবিদ্যালয় মাঠে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে বিকেল সাড়ে ৫টায় মরহুমের নিজ বাসভবনের (মানিকপুর কোম্পানীগঞ্জ) সামনে নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে দাফন সম্পন্ন করা হবে।
গত ১৬ মার্চ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে মারা যান বিএনপির এ বর্ষিয়ান নেতা। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। তিনি স্ত্রী ও এক মেয়ে রেখে গেছেন।

চিকিৎসার জন্য গত ১ ফেব্রুয়ারি তাকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়। এর আগে প্রায় দু’মাস তিনি রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা নেন।