রোজ বুধবার, ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:২০

শিরোনামঃ
নির্বাচনে বিঘ্ন সৃষ্টিকারী, অনাকাঙ্ক্ষিত ব্যক্তিদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে-পুলিশ কমিশনার বিএমপি। মানুষকে সেবা প্রদান করে যে ভালোবাসা পাওয়া যায়, তার চাইতে বড় আত্মতৃপ্তি আর কিছুই নেই__পুলিশ কমিশনার বিএমপি। বরিশালে ৪৬ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ০২ জন বাকেরগঞ্জে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে, কারাগারে পাঠানোর দায়ে, ম্যাজিস্ট্রেটের বিচারিক ক্ষমতা প্রত্যাহারের নির্দেশ ১২০ পিস ইয়াবা সহ গ্রেফতার ০২ নাগরিক নিরাপত্তা ও সামাজিক সমস্যা নিরসনে বিএমপি সদা জাগ্রত- বিএমপি কমিশনার। বরিশালে ০৩ কেজি গাঁজা সহ গ্রেফতার ০১ পটুয়াখালীতে প্রেমিক যুগলের একই দড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা বিএমপি’র অভিযানে ২০৫ পিস ইয়াবা ও ৫৮ গ্রাম গাঁজা সহ গ্রেফতার ০২ পটুয়াখালীতে মোটরসাইকেল-মাহিন্দ্রার সংঘর্ষে স্বর্না (১০) নামের এক শিশুর মৃত্যু
মন্ত্রী মহোদয়ের অপেক্ষায়, শিক্ষার্থীরা ভিজে যায়

মন্ত্রী মহোদয়ের অপেক্ষায়, শিক্ষার্থীরা ভিজে যায়

ছবি সংগৃহীত

অনলাইন ডেস্ক:

পটুয়াখালীর দশমিনায় পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুকের আগমন উপলক্ষে বৃষ্টির মধ্যে সড়কের দুই পাশে স্কুলের শিক্ষার্থীদের দাঁড় করিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী উপজেলার হাজির হাটে নদী ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনে আসেন। এ সময় বৃষ্টির মধ্যে সড়কের দুই পাশে দশমিনা সদর ইউনিয়নের হাজিরহাট নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দাঁড় করিয়ে রাখা হয়।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দশমিনায় পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে সকাল থেকে বিদ্যালয়ের নির্ধারিত পোশাক পড়ে সড়কের দুই পাশে শিক্ষার্থীদের দাঁড় করিয়ে রাখেন প্রধান শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্টরা। এর মধ্যে শুরু হয় বৃষ্টি। বৃষ্টির মধ্যে শিক্ষার্থীরা উঠে আসতে চাইলেও তাদের সড়কে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। সকাল সাড়ে ১০টায় পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী উপজেলার হাজিরহাটে নদীভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনে আসেন।
স্থানীয় বাসিন্দা মামুন জানান, মন্ত্রী আসবেন বলে শিক্ষার্থীদের বৃষ্টিতে ভিজতে হয়েছে।
এ বিষয়ে হাজিরহাট নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ হোসেন বলেন, শিক্ষার্থীদের রাস্তায় দাঁড় করিয়ে রাখার কোনো নিয়ম নেই। বিদ্যালয় ও ভাঙন পরিদর্শন এলাকা একই স্থানে হওয়ায় শিক্ষার্থীরা সড়কে গেছে।
নির্দেশ না দিলে শিক্ষার্থীরা সড়কে সুশৃঙ্খলভাবে দাঁড়িয়ে থাকবে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আজ বিদ্যালয় খোলা ছিল। শিক্ষার্থীদের সড়কে দাঁড় করিয়ে রাখার পক্ষে আমি না। আমি অসুস্থ থাকায় ঘটনার সময় বাড়ি ছিলাম।
শিক্ষার্থীরা কত সময় বৃষ্টিতে ভিজেছে- এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ হোসেন বলেন, বেশি সময় না। মন্ত্রী সাহেব আসছেন আর গেছেন ততক্ষণ। বৃষ্টি ছিল সর্বোচ্চ ৫ মিনিট।