রোজ শনিবার, ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:৩৪

শিরোনামঃ
দীর্ঘদিন বন্ধের পরে আজ খুলেছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, পরিদর্শনে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক বরিশালে ৬ ফার্মেসিকে ২৭ হাজার টাকা জরিমানা বিশেষ কায়দায় ফেনসিডিল বহন করেও শেষ রক্ষা হলো না তাদের, বিএমপি’র অভিযানে আটক ৪। দুইজন নারী ও ফেন্সিডিলসহ বরিশালে মাদক ব্যবসায়ী বুলেট গ্রেফতার কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার একজন বিএমপি’র অভিযানে ৪৫ পিস ইয়াবা সহ গ্রেফতার ০২ বরিশালে লকডাউন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ১ লক্ষ ৩৭ হাজার টাকা জরিমানা ও ৬ জনকে আটক। মীরগঞ্জ খেয়াঘাটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় যাত্রীকে মারধর- অভিযুক্ত গ্রেফতার নগদের ৮ লক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের রহস্য উদঘাটন, ডিএসও নুরুল্লাহ গ্রেফতার। বিএমপি’র সৌজন্যে অসহায় ও দুঃস্থদের মাঝে ঈদ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠিত
রাজধানী বাড্ডায় ছেলেধরা গুজবে পিটিয়ে হত্যার প্রধান আসামি হৃদয় গ্রেফতার

রাজধানী বাড্ডায় ছেলেধরা গুজবে পিটিয়ে হত্যার প্রধান আসামি হৃদয় গ্রেফতার

অলাইন ডেস্ক: রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে পিটিয়ে তাসলিমা বেগম রেনুকে হত্যার মামলার প্রধান আসামি হৃদয়কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে নারায়ণগঞ্জেের ভুলতা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (পূর্ব) এডিসি আসাদুজ্জামান সমকালকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে বিকেলে হৃদয় সন্দেহে রাজধানীর শাহবাগ থেকে একজনজনে গ্রেফতার করা হয়। তবে পরে জানা যায় তিনি আসলে হৃদয় নয় আলামিন।
বাড্ডা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক সমকালকে বলেন, হৃদয় সন্দেহে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তবে পরে জানা যায় তার নাম আলামিন। তাকে ছেড়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।
২০ জুলাই সকালে ঢাকার উত্তর পূর্ব বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে রেনুকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। মেয়ে তুবাকে ভর্তির জন্য ওই স্কুলে খোঁজ নিতে যান তিনি। এসময় তার কথাবার্তায় সন্দেহ হলে গুজবেই লোকজন জড়ো হয়ে ছেলেধরা বলে গণপিটুনি দিলে মারা যান রেনু।
লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার উত্তর সোনাপুর গ্রামে রেনুর বাবার বাড়িতে রোববার রাতে তাকে দাফন করা হয়। তুবা এখন তার খালাদের সঙ্গে রয়েছে।
রেনুকে হত্যার ঘটনায় শনিবার রাতে অজ্ঞাত ৪০০-৫০০ জনের বিরুদ্ধে বাড্ডা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন নিহতের ভাগিনা সৈয়দ নাসির উদ্দিন টিটু।
হত্যাকারীদের বিচারের দাবি জানিয়ে রাস্তায় নেমেছে নিহত রেনুর শিশুকন্যা তুবা। হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ হয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকেও চলছে ক্ষোভ।