রোজ শুক্রবার, ২২শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:২৮

শিরোনামঃ
বিএমপি’র অভিযানে ০১(এক) কেজি গাঁজা সহ গ্রেফতার ০২ (দুই) মুজিবশতবর্ষ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর ঘর উপহার পাচ্ছেন বিভিন্ন পেশার ৪৫০ পরিবার পটুয়াখালীর মহিপুরে গাছ বোঝাই টমটম উল্টে পিতা পুত্র হতাহত। টাইগারদের দাপুটে জয় আফসারের খুনীদের গ্রেফতার করে নির্বাচনে সুষ্ঠ পরিবেশ ফিরিয়ে আনুন, জানাযা নামাজে -পৌর মেয়র কামাল। কাগজপত্র দেখতে চাওয়ায় সার্জেন্টকে পিটিয়ে জখম করলো দুই যুবক ৫ম ধাপে ৩১ পৌরসভার নির্বাচন ২৮ ফেব্রুয়ারি জন্ম নিবন্ধন সনদ নিতে এসে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে ধর্ষণের শিকার তরুণী ফেব্রুয়ারিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা মেহেন্দিগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতায় মৃত্যুর ঘটনায় এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেন
কলাপাড়ায় দুই ভূয়া চিকিৎসক গ্রেফতার

কলাপাড়ায় দুই ভূয়া চিকিৎসক গ্রেফতার

ধানসিঁড়ি নিউজ।।পটুয়াখালীর কলাপাড়া পৌর শহরের হাসপাতাল সড়কের ক্লিনিক পাড়ায় অভিযান চালিয়ে দুই ভূয়া ডাক্তারকে গ্রেফতার করেছে পটুয়াখালী র‌্যাব-৮ এর ভ্রাম্যমান আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে জননী প্যাথলজি খেকে মোহাম্মদ শরীফ জামাল এবং সাউথ পপুলার ডায়াগনষ্টিক সেন্টার থেকে ডা. সঞ্জয় কুমার তালুকদারকে গ্রেফতার করে র‌্যাব সদস্যরা। তাৎক্ষণিক র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক দুই ভূয়া চিকিৎসককে এক বছরে করে কারাদন্ডের আদেশ দেন। এ ছাড়া দুুই ক্লিনিক মালিককে এক লাখ টাকা করে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেন।

র‌্যাবের অপর অভিযানে পৌর শহরের কাঁচা বাজার এলাকার শিলা ডেন্টাল ক্লিনিকে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় দন্ত চিকিৎসার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকায় ভূয়া দন্ত চিকিৎসক সুভাষ চন্দ্র মিত্রকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও ডেন্টাল ক্লিনিক বন্ধের আদেশ দেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট।

এ অভিযানের নেতৃত্ব দেন পটুয়াখালী র‌্যাব-৮ এর কোম্পানি কমান্ডার মো. রবিউল ইসলাম। এ সময় জেলা সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি কলাপাড়া হাসপাতালের মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. মো. ইকবাল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

পটুয়াখালী র‌্যাব-৮ এর কোম্পানি কমান্ডার মো. রবিউল ইসলাম জানান, সঞ্জয় কুমার তালুকদার পেশায় একজন গরুর ফার্ম মালিক হলেও সে দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে রোগীদের সাথে প্রতারণা করছেন। অপর চিকিৎসক মোহাম্মদ শরীফ জামাল এর আগেও ভূয়া ডাক্তার হিসেবে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয়েছিলো। কিন্তু জামিনে এসে সে আবার প্রতারণা শুরু করেছে। ভূয়া ডাক্তারদের বিরুদ্ধে তাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান।

র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক জানান, দুই ভূয়া চিকিৎসককে এক বছর করে কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে ও দুই প্যাথলজি মালিককে এক লাখ টাকা করে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অপর ভূয়া দন্ত চিকিৎসককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও ডেন্টাল ক্লিনিক বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।